ফেব্রুয়ারি ২০১৫ মাসে ধর্মীয় সংখ্যালঘু হামলার রিপোর্ট

বর্তমানে বাংলাদেশে ধর্মনিরপেক্ষতার চাদর পরে রাজনীতি করলেও বাস্তবতা হল ৭৫ পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুর কবর থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম নিয়ে একটি প্রতিক্রিয়াশীল আওয়ামী লীগের-ই জন্ম হয়েছে। বিএনপি আওয়ামী বিরোধীতা ও ভারত বিরোধীতা দেখিয়ে রাজনীতি করে আসছে। ফলে বিএনপির মূলত কোন আদর্শ নেই। সেনা নিবাসের মদের টেবিল থেকে গড়ে উঠা একটি দল হল বিএনপি। বিএনপির আমলে পূর্ণীমাদের উপর যে নির্যাতন হয়েছে সেই তথ্য আমরা অনেকে জানলেও আওয়ামী লীগের আমলে যে নীরব কখনো প্রকাশ্যে পূর্ণীমা ও সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন হয় তা আমাদের বুদ্ধিজীবীরা বলতে চান না বা এই বিষয়ে কখা বলতে আগ্রহী হয় না। এছাড়া বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় পদে বসার লোভে সংখ্যালঘু পরিবার থেকে উঠে আসা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক থেকে শুরু করে অনেকেই ইনিয়ে বিনিয়ে বলে থাকেন-আমরা ভাল আছি! সত্যতা এড়িয়ে গেলেও ঘটনা থেমে থাকে না। শক্রর সম্পত্তি আইন নামক কাল আইন, রাজনৈতিক নেতাদের কর্তৃক সম্পত্তির লোভে সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারের কারণে প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে নীরবে রাতের আঁধারে চলে যাচ্ছে হাজারো মানুষ। আসুন দেখে নি, রাজনৈতিক দলগুলো কর্তৃক সংখ্যালঘুদের সম্পত্তি দখলের প্রতিবেদন।

তথ্য সূত্র- বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের বঞ্চনা: অর্পিত সম্পত্তির সাথে বসবাস –সাইফুল হক , সেলিম রায়হান (Editor) , আবুল বারকাত , অভিজিৎ পোদ্দার ,শফিক উজ জামান , মো: শাহনেওয়াজ খান , এম তাহেরুদ্দীন , সুভাস কুমার সেনগুপ্ত (Editor)

বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের উপর আক্রমণ আসে ৯০-এর পর বাবড়ি মসজিদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে। সেই সময় পুলিশী পাহাড়ায় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন চলেছিল। স্বাধীনতার পর সেই সময়টাতেই সবচেয়ে বেশি সংখ্যালঘু ভারতে পাড়ি জমায়

যাই হোক বাবরি মসজিদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে কী হয়েছিল তা আলাদা একটা পোস্টে উল্লেখ করব। চলেন চলে যাই ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসের রির্পোটে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে (২০০৯-বর্তমান) বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারের রির্পোট সবার সামনে প্রকাশ করা উচিত। শত চেষ্টা করে বর্তমান বছরের দুই মাসের রির্পোট সংগ্রহ করতে পারি। যা সবার সামনে প্রকাশ করার তাগিদ বোধ করছি।

ঘটনা ১

৩১ জানুয়ারি, ২০১৫

হাটহাজারী, চট্টগ্রাম হিন্দুদের জায়গা দখলের হুমকি

উপজেলার ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাধন চন্দ্র নাথের সম্পত্তি দখলের জন্য এলাকার প্রভাবশালী  মহিউদ্দিন, মো. জসীম ও ইফনুস মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকি, অমানবিক নির্যাতন ও বিভিন্নভাবে হয়রানি করে আসছে ঐ সংখ্যালঘু পরিবারটিকে যাতে তারা বাড়ি ছেড়ে চলে যায়।

-দৈনিক সংবাদ/জনকণ্ঠ, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

 

ঘটনা ২

ঘটনা সংগঠনের তারিখ অজ্ঞাত

সদরপুর,  ফরিদপুর দখল ও চুরিতে  আক্রান্ত বাইশরশি হিন্দু জমিদার বাড়ি

৩০ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত বাইশরশি জমিদার বাড়ি। এসব জমি  এখন ভূমি দস্যুদের দখলে। বাড়ির জানালা দরজাও চুরি হয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। প্রতœতত্ত্ব অধিদফতর বাড়িটি অধিগ্রহণ করলে এ নিদর্শনটি লোপাট হতো না।

-দৈনিক ইত্তেফাক, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৩

৬ ফেব্রুয়ারি,২০ ১৫

মঠবাড়িয়া, পিরোজপুর  মন্দির ও বিদ্যালয়ে আগুন

গত শুক্রবার ভোর রাতে নাপিতখালিতে একটি মন্দিরে আগুন দিয়ে র্দুবৃত্তরা পালিয়ে যায়। একই দিনে কাউখালীতে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

-দৈনিক কালের কণ্ঠ/পিরোজপুর কণ্ঠ/ভোরের কাগজ, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৪

২১ জানুয়ারি , ২০১৫

মঠবাড়িয়া, পিরোজপুর হিন্দু সম্পত্তি দখল

আন্ধার মানিকের বাসিন্দা বিজয় কৃষ্ণ বড়াল জমির মামলায় হাজতে থাকার সুযোগ নিয়ে সন্ধ্যায় সন্ত্রাসী মজিবর রহমান তার বাহিনী নিয়ে বিজয় বড়ালের জায়গা দখল করে এবং ওই পরিবারের যারা বাধা দিতে এসেছিলো তাদের হত্যার হুমকি দেয়।

-দৈনিক পিরোজপুর কণ্ঠ/ পিরোজপুরের কথা, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৫

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

গাইবান্ধা মন্দির ভাংচুর ও বসতবাড়িতে হামলা

সদর উপজেলার আনালেরতাড়ি গ্রামে শনিবার সকালে বিধবা সাবিত্রী রানীর নবনির্মিত বসতবাড়ি ও মন্দির ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী আবদুর রশীদ ও তার বাহিনী। সন্ত্রাসী রশিদ ও তার স্ত্রী  বহুদিন ধরে তার কাছে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলো। তা না দেয়ায় এ নারকীয়তা।

-দৈনিক জনকণ্ঠ, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৬

ঘটনার তারিখ অজ্ঞাত

মিরপুর, কুষ্টিয়া জমি বেদখল

-অগ্নিযুগের বীর ক্ষুদিরামের মামা রায় সাহেব পূর্নচন্দ্রের বাড়ি ছিলো আমলাপাড়ার অঞ্জনগাছীতে। সেখানে তাঁর ৯ বিঘা জায়গার উপরে বাড়ি ছিলো। ইতিমধ্যে তা প্রভাবশালীরা দখল করে নিয়েছে।

-দৈনিক ইত্তেফাক, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৭

৬ ফেব্রুয়ারি,২০১৫

কাউখালী,  পিরোজপুর বসতবাড়ি দখলের চেষ্টা

-কাউখালীতে শ্রীগুরু সংঘের নাম ব্যবহার করে এলাকার চিহ্নিতভুমি দস্যুরা বিশ্বজিৎ বিশ্বাসের জমি দখলের  চেষ্টা করে যাচ্ছে। তার উপর নির্যাতন  চালানো হচ্ছে জায়গার দখল ছেড়ে দেয়ার জন্য।

-দৈনিক সমকাল/পিরোজপুর কণ্ঠ, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৮

১২ জানুয়ারি, ১৫

নাজিরপুর,  পিরোজপুর  বাগন বাড়ি দখল    ১    নাজিরপুর বিএনপির তিন নেতা কালাম সর্দার, হাসকিনও নজরুল তাদের সন্ত্রাসী বাহিনীসহ  শ্যামল বৈরাগী ও বিধান বৈরাগীর বাগানবাড়ি দখল করে নিয়েছে। স›ত্রাসীরা তাদের ২লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়ে গেছে।

-দৈনিক  আলোকিত বংলাদেশ, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ৯

৮ ফেব্রুয়ারি,  ১৫

পার্বতীপুর, দিনাজপুর   আদিবাসী তরুণী ধর্ষণ ১    দিনাজপুরের পার্বতীপুরে আদিবাসী সাওঁতাল  তরুণীকে অপহরণ করে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে দুই বখাটে যুবক।

-দৈনিক সমকাল, ১০ ফেব্রুয়ারী,  ২০১৫

ঘটনা ১০

১০ ফেব্রুয়ারি, ১৫

মুন্সীগঞ্জ সংখ্যালঘু পরিবারকে হুমকি দিয়ে উড়ো চিঠি

-‘বসতভিটে ছেড়ে যাবি, নয়তো তোর পরিবারকে পেট্রোল বোমা মেরে উড়িয়ে দেবো।’ এমন হুমকি দিয়ে শহরের পূর্ব দেওভোগ এলাকার সজল গোস্বামী বরাবরে বেনামে চিঠি দেয়া হয়েছে।

-দৈনিক সমকাল, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১১

ঘটনা ঘটার তারিখ ১০-১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ পর্যন্ত

গ্রাম-কানকুনিপাড়া,  ইউনিয়ন-বড়বাইশদিয়া,  উপজেলা-রাঙ্গাবালী,  পটুয়াখালী     ২৮টি হিন্দু পরিবার অবরুদ্ধ, লুটপাট  ধর্ষণ এবং শ্লীলতাহানি

দাসের কান্দার ২৮টি হিন্দু পরিবারকে গত ৫ দিন ধরে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। তাদের বাড়িতে লুটপাট, ধর্ষণ এবং দৈহিক নির্যাতন চালিয়েছে বিএনপির ৩ নেতা  রুহুল আমিন সিকদার,  লিন  সিকদার বাবু গাজী ও তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী। হিন্দুদের তাড়িয়ে তাদের জায়গা দখল করার জন্য এ ধরনের নির্যাতন চালানো হচ্ছে। আহত ১০ জন।

-দৈনিক জনকণ্ঠ/সংবাদ, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১২

ঘটনা ঘটার তারিখ অজ্ঞাত

বেনাপোল,  যশোর, শ্মশানের জমি দখল

নাভারন দেউলি এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ৩ শ’ বছরের পুরানো মহাশ্মশানের জমি দখল করেছে নুর ইসলাম নামে স্থানীয় এক প্রভাবশালী।

-দৈনিক ইত্তেফাক, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১৩

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

রূপগঞ্জ,  নারায়ণগঞ্জ ৫ মূর্তি ভাংচুর

-গত শুক্রবার  নগরপাড়া পুজা মন্ডপে দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে ৫টি মূর্তি ভাংচুর করে ।

-দৈনিক ইত্তেফাক/ আমাদের সময়, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১৪

ঘটনা ঘটার তারিখ অজ্ঞাত

গোপালগঞ্জ হিন্দু পরিবার নিরাপত্তাহীনতায়

মন্ডলদের পুকুর থেকে জোর করে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে জামাত নেতা আবুল কালাম তার বংশীয় লোকজন নিয়ে মন্ডলবাড়িতে হামলা চালায় ও বেধড়ক মারপিট করে। এখনও নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে পরিবারটি। আহত ৫।

-দৈনিক জনকণ্ঠ, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১৫

২০ ফেব্রুয়ারি. ১৫

পাকুন্দিয়া,  কিশোরগঞ্জ  ৩ হিন্দুকে কুপিয়ে জখম

জমি বিরোধের জের হিসেবে গত শুক্রবার দিবাগত রাতে নিশ্চিন্তপুর গ্রামের স্বপন সরকার, বিপ্লব ও মিলন রানী কে কুপিয়ে জখম করেএকই গ্রামের আলফাজ শরীফ ও তাদের লোকজন। আহত   ৩।

-দৈনিক সংবাদ, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১৬

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

শেরপুর, বগুড়া মন্দিরে আগুন

গত সোমবার চন্ডিজান রাধাগোবিন্দ মন্দিরে রাত ১২টার দিকে দুর্বৃত্তরা  খড় ও কাপড়ে কেরোসিন ঢেলে মন্দিরে আগুন দিয়ে পালানোর  সময়ে দুই শিবির কর্মী ফরহাদ(১৯) ও তোহা (২২) কে জনগণ আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

-দৈনিক সংবাদ, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

ঘটনা ১৭

২৪ ফেব্রুয়ারি, ১৫

যশোর ১১৬ হিন্দু পরিবার জিম্মি

চুড়ামন কাঠি ইউপি সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা ও তার বাহিনীর অত্যাচার,  নিপীড়ন এবং চাঁদাবাজির কাছে জিম্মি জীবন যাপন করছে ১১৬টি হিন্দু পরিবার। তারা যাকে খুশী তাকে ধরে আটকে রেখে নির্যাতন চালায়, ঘেরের মাছ লুটে নেয়, চাঁদাবাজি করে এভাবে  জিম্মি হয়ে আছে ৪০০জন মানুষ।

-দৈনিক সংবাদ/আজকের দর্পন, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫

এছাড়াও প্রসঙ্গিক লেখাগুলো নিচে দেওয়া হল।

জানুয়ারি ২০১৫ মাসে ধর্মীয় সংখ্যালঘু হামলার রির্পোট

ফিরে দেখা- বাংলাদেশ (২০০১-২০০৬)- সংখ্যালঘু ও ভিন্নমতালম্বী নির্যাতন

ফিরে দেখা ২০০১ সাল এবং যুদ্ধাপরাধী প্রেমিক বিএনপি

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s